Spread the love

বিশ্বখ্যাত ফ্যাশন ডিজাইনার কার্ল ল্যাগারফেল্ডের মতো তার বিড়াল শপেটও ফ্যাশন দুনিয়ায় সুপরিচিত। গত মঙ্গলবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) জার্মানির ফ্যাশন ডিজাইনার কার্ল ৮৫ বছর বয়সে মারা যান। মারা যাওয়ার আগে তিনি কার্ল কমপক্ষে ৩০ লাখ ইউরো দান করে গেছেন তার পোষা বিড়াল শপেটকে।

বর্তমানে শীর্ষ ধনী পোষা প্রাণীগুলোর তালিকায় জায়গা করে নিয়েছে শপেট। কার্ল ২০ কোটি ডলারের সম্পদ রেখে গেছেন। এর একাংশের মালিক শপেট। মৃত্যুর অনেক আগেয় কার্ল বলেছিলেন, শপেটের জীবনযাত্রায় যেন কখনোই কোনো ব্যাঘাত না ঘটে, সে ব্যবস্থা করে যাবেন তিনি। বিড়ালটির সব সময় দুজন ব্যক্তিগত দেহরক্ষী থাকবে। থাকবে দুজন কাজের লোকও।

আট বছর বয়সী বিড়াল শপেটকে ২০১১ সালে কার্ল তার এক বন্ধুর কাছ থেকে নিয়ে আসেন। এরপর থেকে বিলাসবহুল জীবনযাপনের জন্য পরিচিত হয়ে ওঠে শপেট। টেবিলে বসে রুপার থালায় খাওয়া, নরম বিছানায় ঘুমানো বিড়ালটির প্রতিদিনের অভ্যাস। এছাড়া তার প্রিয় খাবার কাঁকড়া, রান্না করা স্যামন মাছ আর সামুদ্রিক মাছের ডিম।

কার্ল তার পোষা বিড়াল শপেটকে প্রচন্ড ভালবাসতেন। একবার তিনি বলেছিলেন, যদি তার আগে শপেট মারা যায়, তাহলে বিড়ালটির দেহভস্ম সংরক্ষণ করে রাখা হবে। এরপর কার্ল মৃত্যুর পর তার ও তার মায়ের দেহভস্মের সঙ্গে শপেটের ভস্ম ছড়িয়ে দেওয়া হবে।বিড়ালটির ওপর শপেট: দ্য প্রাইভেট লাইফ অব হাইফ্লাইং ফ্যাশন ক্যাট শিরোনামে বইও রচিত হয়েছে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বিড়ালটির অনুসারীর সংখ্যা ১ লাখ ৭০ হাজারের বেশি। জার্মানির একটি গাড়িনির্মাতা প্রতিষ্ঠানের এবং জাপানের একটি প্রসাধনী প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপনচিত্রে ল্যাগারফেল্ডের সঙ্গে শপেটকে দেখা গেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here