Spread the love

কালামস্যাট-ভি-টু নামে বিশ্বের সবচেয়ে হালকা স্যাটেলাইট উপগ্রহ নির্মাণ ও ডিজাইন করেছেন ভারতের এক তরুণ দল। উপগ্রহটির ওজন এক কেজি ২৬০ গ্রাম। তারা উপগ্রহটি তৈরি করছে ছয় দিনের মাথায়,যা কক্ষপথে সফলভাবে উৎক্ষেপন করা সম্ভব হয়েছে।

তরূন দলটির মধ্যে নেতৃত্বে ছিলেন ভারতের ১৯ বছর বয়সী স্নাতক পড়ুয়া এক তরুণ, যার নাম রিফাথ শারুক। সে দলের মধ্যে সবচেয়ে কনিষ্ঠ হলেও দাপটের সঙ্গে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন ৭জনের এই দলটিকে।

শারুক বলেন, “ আমরা ভাষা হারিয়ে ফেলেছিলাম। আমরা পরে আনন্দে একে অপরকে জড়িয়ে ধরলাম। ওটা আমাদের জন্য খুব আবেগঘন মুহূর্ত ছিল। যেটা আসলে কোন ভাষায় প্রকাশ করা যাবে না।” ভারতের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা ইসরো এই ক্ষুদ্র উপগ্রহটি গত বৃহস্পতিবার একটি রকেটের মাধ্যমে কক্ষপথে সফলভাবে নিক্ষেপ করে। কালামস্যাট-ভি-টু উপগ্রহটি নামকরণ করা হয়েছে ভারতের প্রয়াত ও সাবেক প্রেসিডেন্ট এবং মহাকাশ গবেষণার বিশিষ্ট পথিকৃৎ ড. এ পি জে আব্দুল কালামের নামানুসারে।

শারুক বলেন, “ এই সাফল্য আমরা রাতারাতি অর্জন করি নাই। এর পেছনে বছরব্যাপী পরিশ্রম রয়েছে।’’ ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থা- ইসরো ওই উপগ্রহটি অতিরিক্ত পে-লোড হিসেবে বিনে পয়সায় বহন করে মহাকাশে নিয়ে যায়। গত বৃহস্পতিবারের ওই উৎক্ষেপণের পেছনে প্রধান উদ্দেশ্য ছিল মহাকাশে একটি সামরিক উপগ্রহ নিক্ষেপ করা।

শারুক আরো বলেন, ‘আমরা ইসরো থেকে যে সহায়তা পেয়েছি, তার জন্য আমরা অনেক কৃতজ্ঞ। যদি আমরা বাণিজ্যিকভাবে পরিচালিত রকেট দিয়ে উপগ্রহটি মহাকাশে নিক্ষেপ করতাম তা হলে তারা এই উপগ্রহের জন্য ৬০ হাজার থেকে ৮০ হাজার ডলার দাবি করতো। যেটি কিনা আমাদের পক্ষে বহন করা সম্ভব ছিল না। উপগ্রহটি তৈরি করতে আমাদের খরচ পড়েছে প্রায় ১৮ হাজার ডলারের মতো। এটা অপেশাদার রেডিও যোগাযোগে সাহায্য করার জন্য ডিজাইন করা হয়েছে। যেটা মহাকাশে প্রায় দুই মাসের মতো টিকবে।”

সূত্রঃ বিবিসি

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here