Spread the love

অবৈধভাবে কোচিং সেন্টার চালানোর দায়ের ছয়টি কোচিং সেন্টারে সিলগালা ও পাঁচজনকে কারাদণ্ড দিয়েছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) ভ্রাম্যমাণ আদালত। রোববার (১০ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর ফার্মগেট এলাকায় বেলা ১১টা থেকে এই অভিযান পরিচালিত হয়েছে।

র‌্যাব সদর দফতরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. সারোয়ার আলম  জানান, এসব কোচিং সেন্টার সরকারি নীতিমালা লঙ্ঘন করে অবৈধভাবে পরিচালনা করছিল। এর আগেও তাদের বিরুদ্ধে অভিযান চালানো হয়েছিল। এরপরও তারা কোচিং ব্যবসা বন্ধ করেনি।

সারোয়ার আলম জানান, অভিযানে ফার্মগেট এলাকার ছয়টি কোচিং সেন্টার সিলগালা করা হয়েছে এবং সংশ্লিষ্ট পাঁচজনকে আর্থিক জরিমানা করা হয়েছে। অবৈধ কোচিং সেন্টারের বিরুদ্ধে র‌্যাবে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান এখনও চলছে বলেও জানান তিনি।

এদিকে  শনিবার (৯ ফেব্রুয়ারি) এসএসসির গণিত পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁসের দায়ে টাঙ্গাইলের একটি কোচিং সেন্টারের পরিচালকসহ ২ জনকে এক মাস করে বিনাশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমান আদালত। টাঙ্গাইলের ঘাটাইল উপজেলায় এ ঘটনা ঘটে।

ঘাটাইল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দিলরুবা আহমেদ দৈনিক শিক্ষাকে জানান, এসএসসির গণিত পরীক্ষা শুরুর দশ মিনিট আগেই ঘাটাইল উপজেলা সদর থেকে শ্যামল কোচিং সেন্টারের পরিচালক শ্যামল সাহা এবং সাগরদিঘি উচ্চ বিদ্যালয়ের দপ্তরি আব্দুর রহমানকে নৈর্ব্যত্তিক প্রশ্নসহ আটক করে পুলিশ। প্রশ্নফাঁসের সাথে একই স্কুলের প্রধান শিক্ষক ও কেন্দ্র সচিব হুমায়ুন খালিদের যোগসাজশ চিহ্নিত করে পুলিশ। হুমায়ুন খালিদ শ্যামল কোচিং সেন্টারের অন্যতম পরিচালক। তিনি তারই স্কুলের দপ্তরি আবদুর রহমানকে দিয়ে কোচিং সেন্টারের মালিক শ্যামল সাহার কাছে প্রশ্নপত্র পাঠান। পুলিশ দপ্তরি ও শ্যামল সাহাকে আটক করে।

দিলরুবা আহমেদ জানান, প্রশ্নফাঁসের সাথে কেন্দ্র সচিবের যোগসাজশ চিহ্নিত হলে ম্যাজিস্ট্রেট এম আল মামুনের নেতৃত্বে শ্যামল ও হুমায়ুন খালিদকে ১ মাস করে কারাদণ্ড দেয়া হয়। মুচলেকা নিয়ে ছেড়ে দেয়া হয় পিওন আবদুর রহমানকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here