Spread the love

বর্তমানে মেয়ে্রা পিছিয়ে নেই কোন দিকে। পুরুষের সাথে সমান তালে তাল মিলিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে মেয়েরাও। ব্যবসায়-বাণিজ্য, প্রযুক্তি, শিক্ষায়,খেলাধুলায় সব খানে এখন মেয়েরা অংশ নিচ্ছে। এবং প্রতিটা বাধাবিঘ্নকে হার মানিয়ে ছিনিয়ে আনছে সাফল্য। তেমনি একজন হলেন মিরোনা খাতুন।

বাংলাদেশের চ্যাম্পিয়নশিপ লিগের একটি দল ঢাকা সিটি এফসির কোচ হয়েছেন সাবেক নারী ফুটবলার মিরোনা খাতুন। বাংলাদেশে এই প্রথম কোনো পুরুষ ফুটবল দলের কোচের দায়িত্ব পেয়েছেন কোনো নারী।ঢাকা সিটি এফসি চ্যাম্পিয়নশিপ লিগের একটি নতুন ক্লাব যেটি নৌবাহিনীর সহযোগিতায় গড়ে উঠেছে। কোচ লিগের শর্ত মতে ন্যুনতম ‘বি’ লাইসেন্স হতে হবে। এএফসির প্রধান কোচ আবু নোমান নান্নু ‘সি’ লাইসেন্সধারী হওয়ায় এই সুযোগ পাননি। কিন্তু মিরোনা ‘বি’ লাইসেন্সধারী হওয়ায় সে চাকরিটি লাভ করে।২০১৮ সালের ২৪শে ডিসেম্বর থেকেই নিয়মিত অনুশীলন করান মিরোনা।

বাংলাদেশের প্রথম কোনো পুরুষ দলের কোচ একজন নারী। এই ইতিহাসে সাক্ষী হতে পেরে মিরোনা খুবই খুশি। জাতীয় দলের নিয়মিত ফুটবলার ছিলেন মিরোনা। অ্যাথলেট হিসেবেও নিয়মিত ছিলেন তিনি। ২০০৯ সালে জাতীয় ফুটবল দলে অভিষেক হয়েছিলো তার। ২০১৬ সালে জাতীয় ফুটবল দল ছেড়ে এবং অ্যাথলেট হিসেবে খেলেছেন নৌবাহিনী ও বিজেএমসির হয়ে। সব মিলিয়ে তার অর্জনে স্বর্ণ আছে ১৩টি।

মিরোনা বলেন, “আসলে আমরা খেলাধুলায় মেয়েরা এখন অনেক এগিয়ে, কোচিংয়ে মেয়েরা আসছি আমরা, আমার কোনো বাধ্যবাধকতা নেই, কোনো সংকোচ নেই।”

ছেলেদের দলে কোচিং করানোতে দলের ফুটবলারদের প্রতিক্রিয়া কেমন জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, “এখানে আমাকে নিয়োগ দিয়েছেন ক্লাব কর্তারা ও নৌবাহিনীর কর্তারা, তাই এখানে আমি সম্পূর্ণ স্বাধীন এবং ছেলেরা আমাকে খুব সম্মান করে।”

তার আশা চ্যাম্পিয়নশিপ লিগ থেকে উত্তীর্ণ হয়ে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে কোচিং করানো। বাংলাদেশের চ্যাম্পিয়নশিপ লিগে জয় দিয়ে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে দলকে খেলাতে চান মিরোনা খাতুন।

 

 

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here