Spread the love

ধূমপায়ী কোনো শিক্ষার্থীকে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি করা হবে না বলে জানিয়েছেন উপাচার্য প্রফেসর ড. এস এম ইমামুল হক। সেই সঙ্গে তিনি বলেছেন, আগামী ভর্তি পরীক্ষায় অধূমপায়ীদের অগ্রাধিকার দেওয়া হবে। কারণ, কোন ধর্মই মাদক বা নেশাকে স্বীকৃতি দেয় না। এ সময় উপাচার্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কেমিক্যাল ড্রাগের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতির বিষয়টি উল্লেখ করেন।

সোমবার সন্ধ্যায় বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু হলে এক মাদকবিরোধী সেমিনার ও আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে উপাচার্য বলেন, ‘তোমরা জানো, তামাক এমন একটি গাছ। যে গাছে পাখি পর্যন্ত বসে না; অথচ আমরা মানুষ এই তামাক খাই।’ তিনি জানান, বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়কে ইতিমধ্যেই মাদকমুক্ত, রাজাকারমুক্ত ও র‍্যাগিংমুক্ত ঘোষণা করা হয়েছে।

ববিতে মাদকবিরোধী সেমিনার ও আলোচনা
অনুষ্ঠানে শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আবু জাফর মিয়া বলেন, ‘গড়বো দেশ, শেখ হাসিনার বাংলাদেশ। তিনি হুশিয়ারি উচ্চারন করে বলেন, এই বাংলাদেশে মাদকের কোন স্থান নেই। এ সময় তিনি পুলিশ প্রশাসনকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনের দোকানগুলোতে মাদক বিক্রয় হলে সাঁড়াশি অভিযান চালানোর অনুরোধ জানান।

বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার মাহফুজুর রহমান বলেন, আজ পাঁচ-সাত বছরের শিশুরাও মাদকে জড়িয়ে পড়ছে। অনেকেই পরীক্ষার আগে রাত জেগে পড়ার জন্য ইয়াবা সেবন করে। তিনি বলেন, বরিশালে বড় বড় মাদকের চালান না এলেও ছোট ছোট অনেক চালান আসে। পুলিশ প্রশাসন এ ব্যাপারে সতর্ক অবস্থানে আছে।

সেমিনারে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ও মাদকবিরোধী কমিটির আহ্বায়ক সুব্রত কুমার দাস। এতে ভিন্ন বিভাগের শিক্ষকমণ্ডলী, পুলিশ কর্মকর্তা ও বঙ্গবন্ধু হলের আবাসিক শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।সেমিনারের সভাপতিত্ব করেন বঙ্গবন্ধু হলের প্রভোস্ট রাহাত হোসেন ফয়সাল। সেমিনারের শুরুতে অন্ধকারে আলো নামক একটি প্রামাণ্য চিত্রের মাধ্যমে মাদকের ভয়াবহতা তুলে ধরা হয়

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here